সাড়ে ১৪ কোটি টাকার মাদকদ্রব্য ধ্বংস কুমিল্লায়

কুমিল্লায় ১৪ কোটি ৬৮ লাখ ৭৯ হাজার ১৭৭ টাকার মাদকদ্রব্য ধ্বংস করেছে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি)। রবিবার মাদকের বিরুদ্ধে কুমিল্লা কোটবাড়ি কুমিল্লা ব্যাটালিয়নের জনসচেতনতামূলক আলোচনা সভার পর এসব ধ্বংস করা হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন কুমিল্লা সদর আসনের সাংসদ বাহাউদ্দিন বাহার।

সাড়ে ১৪ কোটি টাকার মাদকদ্রব্য ধ্বংস কুমিল্লায়

তিনি বলেন, ‘৩০ লাখ শহীদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে এই স্বাধীন সার্বভৌমত্ব পেয়েছি স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য। অন্য দেশের তৈরিকৃত মাদক ধ্বংস করার জন্য নয়। দেশকে আজ মাদক গ্রাস করে ফেলেছে। এখনই সময় ঘুরে দাঁড়ানোর। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীসহ পারিবারিক এবং সামাজিকভাবে সবাইকে মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলত হবে।’

সভায় আরো বক্তব্য দেন- ১০ বিজিবির সেক্টর কমান্ডার আবু মোহাম্মদ মহিউদ্দিন, কুমিল্লা জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীর, কুমিল্লা বিএনসিসির অধিনায়ক সালাউদ্দিন আল মুরাদ, কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নূরুল ইসলাম, কুমিল্লা ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক গোলাম ফজলে রাব্বি, কুমিল্লা মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জাকির হোসেন এবং কুমিল্লা র‌্যাব-১১, সিপিসি-২ এর কোম্পানি অধিনায়ক তালুকদার নাজমুছ সাকিব।

১০ বিজিবির সেক্টর কমান্ডার আবু মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বলেন, ‘দেশের ভৌগলিক সীমান্ত রক্ষা এবং সীমান্তে বসবাসরত মানুষের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে বিজিবি নিরলসভাবে কাজ করছে। সীমান্ত দিয়ে মাদকদ্রব্য আমদানির বিরুদ্ধে শুধু দায়িত্ব নয়, সামাজিক দায়বদ্ধতা মাথায় নিয়েও কাজ করছে বিজিবির সদস্যরা। এছাড়া মাদক পাচার রোধ, জনসচেতনাতামূলক কার্যক্রম এবং শান্তিময় কাজে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে বিজিবি।’

কুমিল্লা জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীর বলেন, ‘শুধু গাঁজা, ফেনসিডিল এবং বিদেশি মদ নয়, এখন ইয়াবা ট্যাবলেটও আসছে ভারত সীমান্ত দিয়ে। আমাদের দেশে মাদকের চাহিদা আছে বলেই নতুন নতুন মাদকের আমদানি বাড়ছে। আমাদের প্রশাসনের কঠোর অবস্থানে যেতে হবে। মাদককারবাবি, বিক্রেতা এং সেবনকারীদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী ২০১৮ সালে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। আমরা এখন যুদ্ধে আছি।’