পতেঙ্গা টার্মিনাল পাচ্ছে সৌদি আরব

পতেঙ্গা টার্মিনাল পাচ্ছে সৌদি আরব

চট্টগ্রাম বন্দরের গতি বাড়াতে প্রায় ২ হাজার কোটি টাকার প্রস্তাবিত পতেঙ্গা কনটেইনার টার্মিনালের কাজটি পেতে যাচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যের প্রভাবশালী দেশ সৌদি আরব। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সভায় প্রকল্পটি বাস্তবায়নে সৌদি সরকারের সঙ্গে জিটুজি চুক্তির সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ টার্মিনাল বাস্তবায়ন হলে বন্দরের সক্ষমতা বাড়বে। প্রতি বছর ৪ লাখ ৪৫ হাজার টিইইউএস (টোয়েন্টি ফিট ইকুইভেলেন্ট ইউনিটস) কনটেইনার বেশি হ্যান্ডলিং করা যাবে বলে জানিয়েছে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ। সভায় উপস্থিত সূত্রগুলো বলছে, বন্দরের দক্ষতার ক্ষেত্রে যে দুটি প্রকল্প সরকার অগ্রাধিকারভিত্তিতে বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছে এর মধ্যে একটি বে-টার্মিনাল এবং অপরটি পতেঙ্গা কনটেইনার টার্মিনাল। দুটি প্রকল্পই দেশের গুরুত্বপূর্ণ ও স্পর্শকাতর অবকাঠামো চট্টগ্রাম বন্দরের সঙ্গে সম্পৃক্ত। সে কারণে এই দুটি প্রকল্প বাস্তবায়নে আগ্রহী দেশগুলোর সক্ষমতা এবং প্রকল্প বাস্তবায়নে আর্থিক প্রস্তাবের বিষয়েও গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। উল্লিখিত দুটি প্রকল্পে ভারত, দক্ষিণ কোরিয়া, সিঙ্গাপুর ও সৌদি আরবসহ বেশ কয়েকটি দেশ আগ্রহ দেখাচ্ছে। এর মধ্যে পতেঙ্গা টার্মিনালের কাজটি সৌদি আরবকে দেওয়ার বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে।

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের (চবক) নির্বাহী প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার রাফিউল আলম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, কোনো দেশের মাধ্যমে এ ধরনের গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে ওই দেশের সরকার টু সরকার চুক্তি থাকতে হয়। যেহেতু সৌদি আরবের সঙ্গে এ ধরনের কোনো চুক্তি নাই, সে কারণে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় সৌদি সরকারের সঙ্গে আগে চুক্তি বাস্তবায়নে জোর দেওয়া হয়েছে। চুক্তি হয়ে গেলে পতেঙ্গা কনটেইনার টার্মিনাল প্রকল্পটি বাস্তবায়নের কাজ পাবে সৌদি।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আলোচনায় পতেঙ্গা কনটেইনার টার্মিনালটি পিপিপি (পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপ) ভিত্তিতে করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। বেশ কয়েকটি দেশ এই প্রকল্পে আগ্রহ দেখাচ্ছে। এ বিষয়ে মন্ত্রণালয় থেকে দ্রুত একটি প্রতিবেদন পাঠানো হবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দেশের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য যে হারে বাড়ছে, তাতে চট্টগ্রাম বন্দরে আরও একাধিক কনটেইনার টার্মিনাল নির্মাণ জরুরি হয়ে পড়েছে। চট্টগ্রাম