জনসচেতনতা বাড়াতে ও বাজারমূল্য স্থিতিশীল রাখতে ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসনের কঠোর নজরদারি

স্টাফ রিপোর্টার: গতক’দিন ধরে ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসন জনসচেতনতা বাড়াতে ও বাজারমূল্য স্থিতিশীল রাখতে কঠোর নজরদারি করছে। ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক মো: মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে সকাল বিকাল দুই বেলা বাজার তদারকি ও জনসচেতনতামূলক প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

জনসচেতনতা বাড়াতে ও বাজারমূল্য স্থিতিশীল রাখতে ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসনের কঠোর নজরদারি

তারা সকালে যা করেছেন: বাজারমূল্য স্থিতিশীল রাখতে ও জনসাধারণকে সচেতন করার লক্ষ্যে গতকালের পরিচালিত মোবাইল কোর্ট কাচিঝুলি বাজার, ঘুনটি বাজার তদারকি করে। মোড়ে মোড়ে মানুষকে দলবদ্ধ না হয়ে ঘরে অবস্থানের কথা বলা হয়, চায়ের দোকানে বা রাস্তা ঘাটে আড্ডা না দেয়ার জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়। এ সময় অতিরিক্ত দামে পেঁয়াজ বিক্রির দায়ে এক দোকানে ২০০০(দুই হাজার) টাকা জরিমানা করা হয়৷
আবার বিকালে যা করেছেন:  মেছুয়া বাজারে চাল ও পেঁয়াজের বাজার দরের উপর বাজার মনিটরিং করা হয় এবং ৫০০০ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়।
গতকাল তারাকান্দায় কাশীগঞ্জ বাজারে দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়েছে। দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীল রয়েছে। মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করায় বিভিন্ন ব্যবসায়ীকে ১৮০০০ টাকা জরিমানা করা হয়।
ত্রিশালে গতকাল বালীপারা ও কালীর বাজারে ইউএনও এর নেতৃত্বে মনিটরিং করা হয়। এ সময় ব্যবসায়ীদের সতর্ক করা হয়। সে সময় চাল ও পেঁয়াজের মূল্য স্বাভাবিক ছিল।
অপরদিকে জেলার ফুলপুরের সবাইকে সতর্ক করা হয়েছে, বাজার অনেকটা স্থিতিশীল ছিল। মোবাইল কোর্টে বের হয়েছে কিন্তু কোন জরিমানা হয়নি।
ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ এর বিভিন্ন ধারায়,গৌরিপুর, ময়মনসিংহ এ গতকাল পর্যন্ত ৭টি মামলায় মোট ৮০০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
অপরদিকে  ২টি মামলায় ৩০০০/- অর্থদণ্ড দেয়া হয়েছে, নান্দাইল উপজেলায়।
জেলা প্রশাসক  মো: মিজানুর রহমান বিভিন্ন গ্রামে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে কথা বলেন। করোনা বিষয়ে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা প্রদান করেন।
অসাধু ব্যবসায়ীদের দৌরাত্ম্য কমাতে প্রত্যেক উপজেলা পর্যায়ে বাজার তদারকি অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।