তাদের টার্গেট ছিল ধর্মভীরু তরুণীরা

ধর্ম পালনে সচেষ্ট ও ধর্মভীরু তরুণীদের জঙ্গিবাদে জড়িয়ে নাশকতার পরিকল্পনার করছিল নিষিদ্ধ সংগঠন আনসার আল ইসলামের সদস্যরা। তারা নাশকতার জন্য দেশের বাইরে থেকে অস্ত্র সংগ্রহেও কাজ করছিল। গোপন খবরে তাদের দুই সক্রিয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। শুক্রবার রাতে পাবনায় পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তাররা হলেন- সাকিব আল ইমতিহান ও নাজমুস সাদাত ফাহিম। তাদের কাছ থেকে জব্দ করা হয়েছে ৪৪ টি উগ্রবাদী বই, জঙ্গি প্রশিক্ষণের ট্রেনিং ম্যানুয়েলসহ বিভিন্ন ধরনের উস্কানিমূলক লিফলেট। শনিবার দুপুরে ঢাকাটাইমসকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি জানান র‌্যাব-২ এর কোম্পানি কমান্ডার মোহাম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকী।

তাদের টার্গেট ছিল ধর্মভীরু তরুণীরা

তিনি জানান, গত ৩০ জানুয়ারি ও ১৩ ফেব্রুয়ারি মুন্সিগঞ্জ ও সিলেটে পৃথক অভিযান চালিয়ে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের আত্মঘাতী দলের চার সদস্যকে আটক করা হয়। তাদের কাছে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব বাকি সদস্যদের ধরতে মাঠে নামে। শুক্রবার রাতে ও শনিবার ভোরে পাবনার চরঘোষপুর ও নিউমার্কেট এলাকায় অভিযান চালানো হয়। অভিযানে দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা আনসারুল আল ইসলামের সঙ্গে সরাসরি জড়িত।

 

মহিউদ্দিন ফারুকী আরো জানান, জঙ্গিরা আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি করতে ধর্ম ভীরু সহজ-সরল যুবতীদেরকে টার্গেট করে বড় ধরণের নাশকতার পরিকল্পনা করেছিল। এছাড়া ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, টেলিগ্রাম ও ফেসবুকে ম্যাসেঞ্জার গ্রুপ খুলে সদস্য বাড়াতে কাজ করছিল।