মহাদেবপুর খাদ্যগুদামে হবিগঞ্জ ও সুনামগঞ্জের ধানের চাল দিয়ে ধান চাল সংগ্রহ কার্যক্রমের উদ্বোধন

মহাদেবপুর খাদ্যগুদামে হবিগঞ্জ ও সুনামগঞ্জের ধানের চাল দিয়ে ধান চাল সংগ্রহ কার্যক্রমের উদ্বোধন

মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: ‘শেখ হাসিনার বাংলাদেশ, ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলায় অভ্যন্তরীণ বোরো ধান চাল সংগ্রহ-২০২০ মৌসুমে সংগ্রহ কার্যক্রম এর আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার মহাদেবপুর উপজেলা খাদ্য গুদাম চত্বরে উপজেলা প্রশাসন ও খাদ্য বিভাগের আয়োজনে মহাদেবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে সংগ্রহ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আহসান হাবিব ভোদন। এ সময় উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ অরুন চন্দ্র রায়, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক শওকত জামিল, মহাদেবপুর খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুস ছালাম, মহিষবাথান খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ, মাতাজি হাট খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সোহেল রানা, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক এসএম রেজাউন নবী আনছারী বাবু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এ সময় খাদ্য গুদামে গিয়ে দেখা যায় অধিক মুনাফা লাভের আশায় এলাকার ব্যবসায়ীরা হবিগঞ্জ ও সুনামগঞ্জের হাওর অঞ্চল থেকে কম মূল্যে মোটা ধান কিনে এনে সেই ধানের চাল সরকারী খাদ্য গুদামে সরবরাহ করছে। এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ অরুন চন্দ্র রায় জানান, সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী চাল সংগ্রহের কথা বলা হয়েছে। সেখানে মোটা চাল বা চিকন চাল এমন কোন উল্লেখ না থাকায় ব্যবসায়ীরা মোটা ধান সংগ্রহ করে তার চাল সরবরাহ করছে। এলাকার কৃষিজীবীরা বলছেন এভাবে মিলাররা যদি সিন্ডিকেটের মাধ্যমে বাইরে থেকে কম দামে মোটা ধান নিয়ে আসে তাহলে এলাকার কৃষকরা লোকসানের মুখে পড়বে। উদ্বোধনী দিনে মোট ৫০ মেট্রিক টন চাল সংগ্রহ করা হয়। এর মধ্যে তৈয়বুর রহমানের হাজি এন্ড সন্স থেকে ২৪ মেট্রিক টন চাল, আব্দুর রাজ্জাকের রাবেয়া অটো রাইস মিল থেকে ১৬ মেট্রিক টন এবং শাহিনুর রহমানের মিতু চাউল কল থেকে ১০ মেট্রিক টন চাল সংগ্রহ করা হয়। মহাদেবপুর খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুস ছালাম বলেন, চলতি মৌসুমে উপজেলার কৃষকদের কাছ থেকে ২৬ টাকা কেজি দরে তিন হাজার ৫’শ মেট্রিক টন ধান এবং মিলারদের কাছ থেকে ৩৬ টাকা কেজি দরে ১৭ হাজার ১৯ মেট্রিক টন চাল সংগ্রহ করা হবে।