January 21, 2019 2:09 am
Breaking News
Home / রাজনীতি / শ্রমিকদের দাবির প্রতি সহানুভূতিশীল সরকার

শ্রমিকদের দাবির প্রতি সহানুভূতিশীল সরকার

গত শনিবার থেকে বকেয়া বেতন ও মজুরি বাড়ানোর দাবিতে ঢাকার বিভিন্ন জায়গায় আন্দোলন করে আসছে শ্রমিকরা। তাদের অভিযোগ, নতুন মজুরি কাঠামো অনুযায়ী ৫১ শতাংশ বেতন বৃদ্ধি শুধু ৭ম গ্রেডের ক্ষেত্রেই দিচ্ছে মালিকরা। সমান বেতন দেওয়া হচ্ছে না, মূল্যায়ন করা হচ্ছে না অভিজ্ঞতা ও দক্ষতাকে।

২০১৭ সালে শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক বলেছিলেন যে  ২০১৯ সালে পোশাক শ্রমিকদের  নতুন বেতন কাঠামো প্রণয়ন করা হবে। ইতিমধ্যে সরকার থেকে নতুন বেতন কাঠামো প্রণয়ন করা হলেও গার্মেন্টস মালিকগণ তা মেনে নেয় নি। বেতন ও ভাতা সুবিধা বৃদ্ধি করার কোনো সুখবর  তারা এখনও শ্রমিকদের দেয়নি। সরকার নির্দেশ দেয়ার পরও গার্মেন্টস মালিকরা কেন বেতন কাঠামো অনুসরণ করছে না এই দাবিতে রাস্তায় নেমেছে পোশাক শ্রমিকরা।

তৈরি পোশাক শিল্পের শ্রমিকরা ন্যূনতম যে মজুরি দাবি করছেন, মালিকরা তার মাত্র ৬০ শতাংশ দেয়ার প্রস্তাব করেছেন৷ এ নিয়ে শ্রমিকদের মধ্যে দেখা দিয়েছে অসন্তোষ৷ মজুরি কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান বলেছেন, মালিকদের প্রস্তাবটা প্রহসনের মতো৷

শ্রমিক নেতারা জানান, আমরা মালিকদের এই একগুঁয়েমি ভাব নিয়ে এরই মধ্যে বৈঠক করেছি৷ আমাদের আশা খুব অল্প সময়ের মধ্যে মজুরি নিয়ে মালিক-শ্রমিক সমঝোতা হবে৷

ন্যূনতম মজুরি ঘোষণা করা হলেও এখনো তার বাস্তবায়ন করা হয়নি৷ মালিকপক্ষ এখন সময় চেয়ে কালক্ষেপণের পথ বেছে নিতে পারে৷ তারা যদি সেরকম কিছু করেন, তাহলে শ্রমিকরা তা মেনে নেবেন না। মালিকরা যে মজুরির প্রস্তাব দিয়েছেন, তা শ্রমিকদের একটা বিক্ষোভের মধ্যে ঠেলে দিয়েছে৷ তাই আজও আমরা সমাবেশ করেছি৷

শ্রমিক নেতারা আরও জানান, মালিকদের মানসিকতা হয়েছে, তারা যেন বেতনই দিতে চান না৷ আমরা বলেছি, গার্মেন্টস মালিকরা যেন বিলাসিতা কমিয়ে দেন৷ তারা যেন মানসিকতার পরিবর্তন করেন৷ আমরা সবাই মিলে ১৬ হাজার টাকা প্রস্তাব করেছিলাম৷ আর সেটাই যৌক্তিক৷

মালিকরা যে মজুরির প্রস্তাব দিয়েছেন, তা শ্রমিকদের একটা বিক্ষোভের মধ্যে ঠেলে দিয়েছে। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন প্রধানমন্ত্রী ৷ আমরা মনে করি, তিনি মজুরির ব্যাপারের সঠিক সিদ্ধান্ত নেবেন।

শ্রমিকদের দাবি নিরসনকল্পে এরই মধ্যে বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ কর্তৃক বিজিএমইএ’র কার্যালয় ঢাকায় জরুরি ভিত্তিতে আলোচনা সভা চলমান রয়েছে।

এদিকে শ্রমিকদের দাবির প্রতি সরকার ও মালিকপক্ষ উভয়ই সহানুভূতিশীল রয়েছে বলে জানা গেছে।

About BTB News

Check Also

মার্চে ডিএনসিসি’র উপনির্বাচন! আনিসুলের যোগ্য উত্তরসূরীর খোঁজে…

প্রথমবারের মতো বিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের (ডিসিসি) উত্তর অংশের মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন ব্যবসায়ী ঘরানার ব্যক্তিত্ব …

মুছে ফেলা হচ্ছে জামায়াতে ইসলামীর সাংগঠনিক সকল তথ্য!

নিউজ ডেস্ক: হঠাৎ রাজনীতির খাতা থেকে নিজেদের নাম মুছে ফেলতে তৎপর হয়েছে ইসলামপন্থী রাজনৈতিক দল …

গণতন্ত্রের প্রতি অনীহা ও পরনির্ভরশীলতার কারণে বিএনপি জোটের অধঃপতন

নিউজ ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শোচনীয় পরাজয়ের পর একটা ঘোরের মধ্যে পড়েছে বিএনপি। পরাজয়ের …

টিকে থেকে পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতেই বিএনপিতে একাকার হচ্ছে জামায়াত!

নিউজ ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পরাজয়ের পর সারা দেশের জামায়াত কর্মীরা গোপনে দলে দলে …

সংরক্ষিত আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ভাবনা

নারীর সংরক্ষিত আসন সংখ্যা নির্ধারিত হয় রাজনৈতিক দলের আকারের ওপর অর্থাৎ যে দলের প্রতিনিধিত্ব সংসদে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *