ছোট উদ্যোক্তাদের জামানতবিহীন ঋণ দিতে ‘স্টার্ট-আপ ফান্ড’ গঠন

ছোট উদ্যোক্তাদের জামানতবিহীন ঋণ দিতে ‘স্টার্ট-আপ ফান্ড’ গঠন

বাংলাদেশ ব্যাংক নতুন উদ্যোক্তাদের ঋণ দিতে ‘স্টার্ট-আপ ফান্ড’ নামে ৫০০ কোটি টাকার তহবিল গঠনের অনুমোদন দিয়েছে। সেখান থেকে ছোট উদ্যোক্তারা স্বল্প সুদে জামানতবিহীন ঋণ পাবেন।

বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ) বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ সভায় ‘স্টার্ট-আপ ফান্ড’ গঠনের অনুমোদন দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের নিজস্ব উৎস থেকে ‘স্টার্ট-আপ ফান্ড’ নামে ৫০০ কোটি টাকার পুনঃঅর্থায়ন তহবিল গঠন করা হবে। এছাড়াও অন্য সব বাণিজ্যিক ব্যাংক মিলে আরও ৫০০ কোটি টাকার তহবিল গঠন করবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নিজস্ব উৎস থেকে স্টার্ট-আপ ফান্ডের জন্য ৫০০ কোটি টাকার পুনঃঅর্থায়ন তহবিল গঠন করা হবে। আবর্তনযোগ্য এ তহবিলের মেয়াদ হবে পাঁচ বছর। প্রয়োজন হলে ভবিষ্যতে এ তহবিলের আকার আরও বাড়ানো হতে পারে।

পাশাপাশি বাণিজ্যিক ব্যাংক মিলে আরও ৫০০ কোটি টাকার তহবিল গঠন করবে। তাদের বার্ষিক নিট মুনাফা থেকে এক শতাংশ অর্থ স্থানান্তর করে নিজস্ব ‘স্টার্ট-আপ ফান্ড’ গঠন করবে।

গ্রাহক পর্যায়ে এ তহবিলের সুদহার হবে সর্বোচ্চ ৪ শতাংশ পর্যন্ত আর বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে এ তহবিলে ঋণ পাবে শূন্য দশমিক ৫০ শতাংশ সুদহারে।

গ্রাহক সম্পূর্ণ জামানতবিহীন এক কোটি টাকার ঋণ পাবেন এ তহবিল থেকে। সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কর্তৃক স্টার্ট-আপ উদ্যোক্তাদের থেকে ব্যক্তিগত গ্যারান্টি গ্রহণ করবে। তবে ডিগ্রিধারী উদ্যোক্তাদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতার মূল সনদপত্র, কারিগরি প্রশিক্ষণের মূল সনদপত্র জামানত হিসেবে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে জমা রাখতে হবে।

এছাড়াও বৃহস্পতিবারের (১১ মার্চ) পর্ষদ সভায় চূড়ান্ত লাইসেন্সের জন্য প্রাথমিক সম্মতিপত্র (এলওআই বা লেটার অব ইনটেন্ট) প্রস্তাবিত পিপলস ব্যাংককে ৩ মাস সময় দেয়া হয়েছে। এলওআইয়ের শর্ত পূরণ করার জন্য প্রস্তাবিত পিপলস ব্যাংক তিন মাস সময় চায়। আবেদনের প্রেক্ষিতে সময় দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এ সময়ের মধ্যে শর্ত পূরণে ব্যর্থ হলে নিয়ম অনুযায়ী তাদের এলওআই বাতিল হয়ে যাবে।