জলবায়ু ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোর পাশে থাকবে যুক্তরাজ্য

জলবায়ু ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোর পাশে থাকবে যুক্তরাজ্য

নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশসহ জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোর স্বার্থ ও অগ্রাধিকারের বিষয়টি যুক্তরাজ্যের পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক ফোরামে গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরা হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জাতিসংঘের জলবায়ু শীর্ষ সম্মেলন কপ-২৬ এর সভাপতি অলোক শর্মা বুধবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করতে গণভবনে গেলে বাংলাদেশের সরকারপ্রধান এই আশাবাদ জানান।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম পরে ওই বৈঠকের বিষয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি জানান, নভেম্বরে যুক্তরাজ্যে অনুষ্ঠেয় কপ-২৬ সম্মেলনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন অলোক শর্মা।

১ থেকে ১২ নভেম্বর স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে জাতিসংঘ আয়োজিত বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলন কপ-২৬ অনুষ্ঠিত হবে।

ইহসানুল করিম বলেন, ‘বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ আশা করে, যুক্তরাজ্য জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোর স্বার্থ ও অগ্রাধিকারের বিষয়টি আন্তর্জাতিক ফোরামে গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরবে।’

বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবে বাংলাদেশসহ ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলো মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যদিও বাংলাদেশে কার্বন নিঃসরণের হার খুবই কম। তবুও আমরা মারাত্মকভাবে আক্রান্ত হব।’

ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের (সিভিএফ) সভাপতি হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলায় বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে অলোক শর্মা বৈঠকে আশা প্রকাশ করেন।

ব্রিটিশ এই আইন প্রণেতা তাদের দেশে করোনাভাইরাসের টিকাদান কার্যক্রম ভালভাবে চলছে বলেও জানান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ ঘনবসতিপূর্ণ দেশ হওয়ার পরও এই মহামারীর মধ্যে অর্থনীতির চাকাকে সচল রাখতে নানা ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে।

কপ-২৬ সভাপতি অলোক শর্মা ‘গ্রিন এনার্জি’ ব্যবহারের প্রসঙ্গ আনলে সরকারপ্রধান তাকে জানান, বাংলাদেশ গ্রিন এনার্জির দিকে যাচ্ছে, এরই মধ্যে ৫৮ লাখ সৌর বিদ্যুতের সংযোগ দেওয়া হয়েছে।

সরকার ও দলের পক্ষ থেকে ব্যাপক মাত্রায় বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি হাতে নেওয়ারও কথাও তাকে বলেন শেখ হাসিনা।