করোনা মোকাবিলায় সব রাষ্ট্রকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে

করোনা মোকাবিলায় সব রাষ্ট্রকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, প্রতিনিয়ত করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ ও বিস্তৃতি বিশ্বব্যাপী ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। এর ভয়াল থাবা থেকে রক্ষা পেতে উন্নত ও উন্নয়নশীল, নির্বিশেষে সব রাষ্ট্রকে ভেদাভেদ ভুলে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে।

বুধবার (৯ জুন) বিশ্ব অ্যাক্রেডিটেশন দিবস-২০২১ উপলক্ষে দেয়া বাণীতে তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, বিশ্ব অ্যাক্রেডিটেশন দিবস উদযাপন করা হচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত। এ উপলক্ষে আমি বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন বোর্ডের (বিএবি) সকল অংশীজন ও উন্নয়ন সহযোগী সংস্থাকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘অ্যাক্রেডিটেশন : সাপোর্টিং দ্য ইমপ্লিমেন্টেশন অফ দ্য সাসটেইনবল ডেভেলপমেন্ট গোলস’ বর্তমান বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে সময়োপযোগী হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বিএবি দেশে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত একটি মান অবকাঠামো উন্নয়নের মাধ্যমে সকলের জন্য পণ্য ও সেবার গুণগত মান নিশ্চিতকরণ, পরিবেশ দূষণ হ্রাস, নিরাপদ কর্মপরিবেশ নিশ্চিতকরণ, নিরাপদ খাদ্যব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি মোকাবিলা, গুণগত মানসম্পন্ন জীবনরক্ষাকারী ঔষধ এবং প্রতিষেধক উৎপাদন ও সরবরাহের মতো জনগুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাজ করছে। এসব কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে বিএবি ‘টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট-২০৩০’ বাস্তবায়নে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সহায়ক ভূমিকা রাখছে। দেশে উৎপাদিত এবং বিএবি অ্যাক্রেডিটেশন ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষিত গুণগত মানসম্পন্ন ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী (মাস্ক ও অন্যান্য) দেশের অভ্যন্তরে ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে এবং বিদেশেও প্রচুর রফতানি হচ্ছে, যা দেশের অভ্যন্তরীণ বাজারসহ রফতানি বাণিজ্য সম্প্রসারণে সহায়ক ভূমিকা পালন করছে।