২০২২ সালে কোটা অনুমোদন হজের অনুমতি পাবেন ৫৭৫৮৫ বাংলাদেশি

২০২২ সালে কোটা অনুমোদন হজের অনুমতি পাবেন ৫৭৫৮৫ বাংলাদেশি

সউদী আরবের হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয় ২০২২ সালের হজের জন্য বিশ্বের সমস্ত দেশ থেকে হজযাত্রীদের জন্য কোটা অনুমোদন করেছে, ওকাজ/সউদী গেজেট সংশ্লিষ্ট সূত্রে একথা জানতে পেরেছে। সবচেয়ে জনবহুল মুসলিম দেশ ইন্দোনেশিয়ায় হজযাত্রীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। মন্ত্রণালয় ইন্দোনেশিয়ার জন্য ১ লাখ ৫১ জনের কোটা বরাদ্দ করেছে। পাকিস্তানের জন্য দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৮১,১৩২ এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ভারতের জন্য ৭৯,২৩৭ জন নির্ধারণ করা হয়েছে। ৫৭,৫৮৫ জন হজযাত্রী নিয়ে চতুর্থ সর্বোচ্চ কোটা পেয়েছে বাংলাদেশ। আফ্রিকার দেশ অ্যাঙ্গোলা সবচেয়ে কম ২৩ জন হজযাত্রী নিয়ে তালিকার নীচে রয়েছে। আরব দেশগুলোর হিসাবে, আসন্ন বার্ষিক হজের জন্য ৩৫,৩৭৫ জন হজযাত্রী নিয়ে মিসর শীর্ষে রয়েছে। আফ্রিকার দেশগুলোর মধ্যে নাইজেরিয়া সবচেয়ে বেশি ৪৩ হাজার ৮ জনের কোটা পেয়েছে। ইরানের জন্য বরাদ্দ কোটা দাঁড়িয়েছে ৩৮,৪৮১ এবং তুরস্কের কোটা ৩৭,৭৭০ জন।
সূত্রমতে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জন্য কোটা বরাদ্দ করা হয়েছে ৯ হাজার ৫০৪ জন, আর রাশিয়ার জন্য বরাদ্দ ১১ হাজার ৩১৮, চীন ৯ হাজার ১৯০, থাইল্যান্ড ৫ হাজার ৮৮৫ এবং ইউক্রেনের জন্য ৯১টি।
মন্ত্রণালয় আগে ঘোষণা করেছিল যে, বিদেশী হজযাত্রীরা এ বছর হজ করার অনুমতি পাবে এমন মোট দশ লাখ হজযাত্রীর মধ্যে ৮৫ শতাংশ। মোট ৮ লাখ ৫০ হাজার বিদেশী হজযাত্রীকে হজ করার অনুমতি দেওয়া হবে আর দেশীয় হজযাত্রীদের সংখ্যা ১ লাখ ৫০ হাজারে সীমাবদ্ধ থাকবে। মোট ৮ লাখ ৫০ হাজার বিদেশী হজযাত্রীর সংখ্যা করোনাভাইরাস মহামারির প্রাদুর্ভাবের আগে প্রতিটি দেশের জন্য বরাদ্দকৃত হজযাত্রীর প্রকৃত কোটার মাত্র ৪৫.২ শতাংশ।